ঢাকা ০৩:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সৎ মা বিবি মরিয়ম’র বিরুদ্ধে সম্মত্তি আত্নসাতের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

সৎ মা ভূমি উপ সহকারী বিবি মরিয়ম এর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করলো সৎ সন্তানগণ। শনিবার সন্ধ্যায় দৈনিক ভোলা টাইমস্ পত্রিকার নিজস্ব কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন করেন বিবি মরিয়মের সৎ সন্তানরা। সম্মেলনে খাদিজাতুল কোবরা সুর্বনা লিখিত বক্তব্যে বলেন, তিনি ও তার ছোট ভাই মাহমুদুল হাসান শুভ ভোলা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড দরগাহ রোড এর বাসিন্দা। তার বাবা মৃত মোঃ মিজানুর রহমান পেশায় কানুন গো ছিলেন। বিগত ১৮/৯/২০২২ ইং তারিখে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তিনি মৃত্যু বরন করেন। আমার মা ফরিদা ইয়াসমিন আমাকে ও আমার এক ভাইকে রেখে ছোট বেলায়ই মৃত্যু বরন করেন। আমার মা মৃত্যু বরন করলে দরগাহ রোড এর বাসিন্দা মোঃ আনোয়ার তহসিলদারের বোন বিবি মরিয়মকে আমার বাবা বিবাহ করেন। আমরা দুই ভাই বোন আমার বাবা ও সৎ মায়ের সংসারে বড় হয়েছি এবং বাবার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মোটামুটি সব ঠিকঠাক ছিল। আমার বাবার সাথে বিয়ের পর বিবি মরিয়ম ভূমি উপ সহকারী পদে চাকুরিতে যোগদান করেন। বিবি মরিয়ম বর্তমানে পরানগঞ্জ কাচিয়া ইউনিয়নে কর্মরত আছেন। বিবি মরিয়ম আমার বাবার মৃত্যুর ১৫দিন আগে আমাদের না জানিয়ে আমাদের অনুপস্থিতে আমার বাবার নামের গাজীপুর রোডের ১টি জমি বিক্রয় করে দেন। সেই জমির মূল্য ছিল ১ কোটি টাকা। তিনি সে টাকা আত্বসাৎ করেন। আমার বাবার মৃত্যুর পর আমাদের সৎ মা বিবি মরিয়ম পেনশনের টাকা উত্তোলনের জন্য আমাদের কাছে পাওয়ার চাইলে আমরা তাকে পেনশনের পাওয়ার দিবোনা বলে অস্বীকৃতি জানাই। তিনি আমাদের কাছে পেনশন পাওয়ার না পেয়ে আমাকে এবং আমার ভাইকে পেনশনের ওয়ারিশ থেকে বাদ দিয়ে অমার বাবার সংশ্লিষ্ট অফিস ফরিদপুর চরভদ্রাসন অফিসের কিছু অসাধু কর্মচারীর সহযোগীতায় পেনশন আবেদন সই হওয়ার আগ মুহুর্তে বাধার সৃষ্টি করেন। তাতক্ষনিক আমরা ডিসি ফরিদপুর সদরকে অবগত করি। তিনি সকল ওয়ারিশসহ নিয়ম অনুযায়ী অংশ হারে পাওয়ার আশ^াস দেন। যা আজ প্রায় ২ বছর অতিবাহিত হয়ে গেলেও বিবি মরিয়মের অপচেষ্টায় জাল জালিয়াতির কারনে পেনশনের অর্থ পাইনি। এছাড়া বাবার মৃত্যুর পর বাবার স্থাবর অস্থার কোন সম্পত্তি আমরা পাইনি। এমনকি সম্পত্তি বন্টন করতে গেলেও বাধা দেন সৎ মা বিবি মরিয়ম। আমার বাবার ঢাকার ফ্লাট বিবি মরিয়ম দখল করে রেখেছেন। সে সম্পদ থেকেও বিবি মরিয়ম আমাদের বঞ্চিত করতে চান। এছাড়া আমরা পৌরসভার বাসিন্দা। আমার বাবার ভোলার বাড়িতেও আমাদের উঠতে দেন না সৎ মা বিবি মরিয়ম। বাবার ওয়ারিশ সম্পত্তির ভাগ চাওয়ার কারনে বিবি মরিয়ম ও তার বড় ছেলে শান্ত আমাদেরকে বিভিন্ন সময় প্রাণ নাসের হুমকি দিয়ে আসছেন। আমরা আমাদের নিরাপত্তার স্বার্থে ভোলা সদর মডেল থানা বরাবর বিবি মরিয়মের বিরুদ্ধে সম্পত্তির বিরোধের ব্যাপারে অভিযোগ করি। তদন্ত ভার পরে এস আই জসিমের উপর। তিনি বিবি মরিয়ম থেকে অবৈধ সুবিধা নিয়ে ে আমাদেরকে অভিযোগ তুলে নেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। পরবর্তীতে থানা থেকে সম্পদ বন্টনের জন্য শালিশদার নিয়োগ করে দেন আলীনগরের প্যানেল চেয়ারম্যান আফসার উদ্দিন বাবুলকে। শালিসিতে পরপর তিন তারিখে আমরা উভয় পক্ষ উপস্থিত হই সেখানেও বিবি মরিয়ম শালিশ বিচার মানবে না বলে অশালিন আচরন করে চলে আসে। আমার বাবা মারা যাওয়ার পর গত কয়েক মাস আগে আমার বাবার মালিকানাধীন ঢাকার কল্যানপুরে অসম্পূন্ন ফ্লাটে কাজ সম্পন্ন করে বসবাস করে আসছি। আমি এক ফ্লাটে ও আমার ভাই এক ফ্লাটে। গত ৩/৫/২০২৪ইং তারিখে আমাদের সৎ মা বিবি মরিয়ম ও তার বড় ছেলে শান্ত সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে আমাকে আর আমার ভাইকে হত্যার উদ্দে্যশ্যে হামলা করে। আমি বাসায় না থাকার সুবাধে আমার ভাইয়ের আর আমার বাসায় ভাংচুর করে। পরবর্তীতে ৯৯৯ কল দিয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আমাদের বাসায় হামলার সিসি ক্যামেরায় ফুটেজ সকল প্রমান আছে। সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবার বিবি মরিয়ম ও ছেলের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া ও বাবর ওয়ারিশি সম্পত্তি সমহারে বন্টনের জন্য ভোলার অভিভাবক সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহম্মদ এ দৃষ্টি আকর্যণ করেন। তারা জেলা প্রশাসনের নিকট ও জেলার পুলিশ সুপারের নিকট সুষ্ঠ বিচার দাবী করেন। ভোলার মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানের নিকট সমস্যা সমাধানের আবেদন জানান। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে ভোলায় কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সংবাদকর্মী বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

জনপ্রিয় সংবাদ

হু হু করে বাড়ছে তিস্তার পানি নদীপাড়ে আতঙ্ক বিরাজ

সৎ মা বিবি মরিয়ম’র বিরুদ্ধে সম্মত্তি আত্নসাতের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

Update Time : ০৪:১৭:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪

সৎ মা ভূমি উপ সহকারী বিবি মরিয়ম এর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করলো সৎ সন্তানগণ। শনিবার সন্ধ্যায় দৈনিক ভোলা টাইমস্ পত্রিকার নিজস্ব কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন করেন বিবি মরিয়মের সৎ সন্তানরা। সম্মেলনে খাদিজাতুল কোবরা সুর্বনা লিখিত বক্তব্যে বলেন, তিনি ও তার ছোট ভাই মাহমুদুল হাসান শুভ ভোলা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড দরগাহ রোড এর বাসিন্দা। তার বাবা মৃত মোঃ মিজানুর রহমান পেশায় কানুন গো ছিলেন। বিগত ১৮/৯/২০২২ ইং তারিখে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তিনি মৃত্যু বরন করেন। আমার মা ফরিদা ইয়াসমিন আমাকে ও আমার এক ভাইকে রেখে ছোট বেলায়ই মৃত্যু বরন করেন। আমার মা মৃত্যু বরন করলে দরগাহ রোড এর বাসিন্দা মোঃ আনোয়ার তহসিলদারের বোন বিবি মরিয়মকে আমার বাবা বিবাহ করেন। আমরা দুই ভাই বোন আমার বাবা ও সৎ মায়ের সংসারে বড় হয়েছি এবং বাবার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মোটামুটি সব ঠিকঠাক ছিল। আমার বাবার সাথে বিয়ের পর বিবি মরিয়ম ভূমি উপ সহকারী পদে চাকুরিতে যোগদান করেন। বিবি মরিয়ম বর্তমানে পরানগঞ্জ কাচিয়া ইউনিয়নে কর্মরত আছেন। বিবি মরিয়ম আমার বাবার মৃত্যুর ১৫দিন আগে আমাদের না জানিয়ে আমাদের অনুপস্থিতে আমার বাবার নামের গাজীপুর রোডের ১টি জমি বিক্রয় করে দেন। সেই জমির মূল্য ছিল ১ কোটি টাকা। তিনি সে টাকা আত্বসাৎ করেন। আমার বাবার মৃত্যুর পর আমাদের সৎ মা বিবি মরিয়ম পেনশনের টাকা উত্তোলনের জন্য আমাদের কাছে পাওয়ার চাইলে আমরা তাকে পেনশনের পাওয়ার দিবোনা বলে অস্বীকৃতি জানাই। তিনি আমাদের কাছে পেনশন পাওয়ার না পেয়ে আমাকে এবং আমার ভাইকে পেনশনের ওয়ারিশ থেকে বাদ দিয়ে অমার বাবার সংশ্লিষ্ট অফিস ফরিদপুর চরভদ্রাসন অফিসের কিছু অসাধু কর্মচারীর সহযোগীতায় পেনশন আবেদন সই হওয়ার আগ মুহুর্তে বাধার সৃষ্টি করেন। তাতক্ষনিক আমরা ডিসি ফরিদপুর সদরকে অবগত করি। তিনি সকল ওয়ারিশসহ নিয়ম অনুযায়ী অংশ হারে পাওয়ার আশ^াস দেন। যা আজ প্রায় ২ বছর অতিবাহিত হয়ে গেলেও বিবি মরিয়মের অপচেষ্টায় জাল জালিয়াতির কারনে পেনশনের অর্থ পাইনি। এছাড়া বাবার মৃত্যুর পর বাবার স্থাবর অস্থার কোন সম্পত্তি আমরা পাইনি। এমনকি সম্পত্তি বন্টন করতে গেলেও বাধা দেন সৎ মা বিবি মরিয়ম। আমার বাবার ঢাকার ফ্লাট বিবি মরিয়ম দখল করে রেখেছেন। সে সম্পদ থেকেও বিবি মরিয়ম আমাদের বঞ্চিত করতে চান। এছাড়া আমরা পৌরসভার বাসিন্দা। আমার বাবার ভোলার বাড়িতেও আমাদের উঠতে দেন না সৎ মা বিবি মরিয়ম। বাবার ওয়ারিশ সম্পত্তির ভাগ চাওয়ার কারনে বিবি মরিয়ম ও তার বড় ছেলে শান্ত আমাদেরকে বিভিন্ন সময় প্রাণ নাসের হুমকি দিয়ে আসছেন। আমরা আমাদের নিরাপত্তার স্বার্থে ভোলা সদর মডেল থানা বরাবর বিবি মরিয়মের বিরুদ্ধে সম্পত্তির বিরোধের ব্যাপারে অভিযোগ করি। তদন্ত ভার পরে এস আই জসিমের উপর। তিনি বিবি মরিয়ম থেকে অবৈধ সুবিধা নিয়ে ে আমাদেরকে অভিযোগ তুলে নেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। পরবর্তীতে থানা থেকে সম্পদ বন্টনের জন্য শালিশদার নিয়োগ করে দেন আলীনগরের প্যানেল চেয়ারম্যান আফসার উদ্দিন বাবুলকে। শালিসিতে পরপর তিন তারিখে আমরা উভয় পক্ষ উপস্থিত হই সেখানেও বিবি মরিয়ম শালিশ বিচার মানবে না বলে অশালিন আচরন করে চলে আসে। আমার বাবা মারা যাওয়ার পর গত কয়েক মাস আগে আমার বাবার মালিকানাধীন ঢাকার কল্যানপুরে অসম্পূন্ন ফ্লাটে কাজ সম্পন্ন করে বসবাস করে আসছি। আমি এক ফ্লাটে ও আমার ভাই এক ফ্লাটে। গত ৩/৫/২০২৪ইং তারিখে আমাদের সৎ মা বিবি মরিয়ম ও তার বড় ছেলে শান্ত সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে আমাকে আর আমার ভাইকে হত্যার উদ্দে্যশ্যে হামলা করে। আমি বাসায় না থাকার সুবাধে আমার ভাইয়ের আর আমার বাসায় ভাংচুর করে। পরবর্তীতে ৯৯৯ কল দিয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আমাদের বাসায় হামলার সিসি ক্যামেরায় ফুটেজ সকল প্রমান আছে। সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবার বিবি মরিয়ম ও ছেলের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া ও বাবর ওয়ারিশি সম্পত্তি সমহারে বন্টনের জন্য ভোলার অভিভাবক সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহম্মদ এ দৃষ্টি আকর্যণ করেন। তারা জেলা প্রশাসনের নিকট ও জেলার পুলিশ সুপারের নিকট সুষ্ঠ বিচার দাবী করেন। ভোলার মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানের নিকট সমস্যা সমাধানের আবেদন জানান। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে ভোলায় কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সংবাদকর্মী বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।