ঢাকা ০৩:৪৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোলার লালমোহনে পুলিশকে মারধরের ঘটনায় মামলা, আটক-৩

ভোলার লালমোহন জোনে দায়িত্ব পালন কালে ডিএসবির এসআই ( নিঃ) আব্দুল হককে বুধবার রাতে শালীক প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আখতার হোসেনের কর্মীদের হাতে আহত হওয়ার ঘটনায় লালমোহন থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং ১৬/২০২৪। ঘটনার সাথে অভিযুক্ত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) জেলা পুলিশ সুপারের এক বার্তায় এ তথ্য জানা গেছে।

 

ভোলা জেলা পুলিশ সুপারের এক বার্তা সূত্রে জানা যায়, ডিএসবি ভোলার এসআই(নিঃ)/কে এম আবদুল হক, বিপি-৮২০২০৮৫৫৩৩, লালমোহন থানা এলাকায় দায়িত্বরত থাকাকালীন ২২-০৫-২০২৪খ্রি. ১৯:৪৫ ঘটিকায় লালমোহন পৌরসভাধীন ৬নং ওয়ার্ডস্থ হাইস্কুল মার্কেটে মাইমুনা ফ্যাশন নামক দোকানের সামনে অবস্থান করে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লালমোহন উপজেলায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আক্তার হোসেন শালিক মার্কার কর্মী সমর্থকরা মিছিল করার সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন থেকে স্থিরচিত্র ধারণ করাকালীন শালিক মার্কার কর্মী সমর্থকদের মধ্য হতে ১। মোঃ সোহান(২৫), পিতা-মোঃ সোহেল স্বর্নকার, ২। মোঃ রাসেল (২৮), পিতা-মোঃ খোকন হাওলাদার, উভয় সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০৮নং ওয়ার্ড, ৩। মোঃ আরিফ (২৪), পিতা-মেদাঃ নওয়াব বকশী, সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০১নং ওয়ার্ড, ৪। মোঃ নিহাত (২০), পিতা-মোঃ নীরব,সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০৬নং ওয়ার্ড, উত্তর বাজার, ৫। মোঃ রিপন (২২), পিতা-মোঃ নুরুল হক স্বর্নকার, সাং-বালুরচর, লালমোহন পৌরসভা, ১১নং ওয়ার্ড, ৬। মোঃ জিহাদ (২২), পিতা-অজ্ঞাত, সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০৭নং ওয়ার্ড, ৭। মেহেদী(২৫), পিতা-অজ্ঞাত, সাং-অজ্ঞাত, সর্ব থানা-লালমোহন, জেলা-ভোলাসহ অজ্ঞাতনামা আরো ১৫/২০ জনে তার সরকারী কাজে বাধা প্রদান করে এবং এলোপাতারী চর-থাপ্পর, কিল-ঘুষি মেরে নিলা ফুলা জখম করে এবং প্রকাশ্যে খুন ও জখমের হুমকী প্রদান করে। আশপাশের দোকানদার তাকে রক্ষা করে। সংবাদ পেয়ে লালমোহন থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে এসআই(নিঃ)/কে এম আবদুল হক কে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান এবং চিকিৎসা করান।  এ সংক্রান্তে এসআই(নিঃ)/কে এম আবদুল হক লালমোহন থানায় এজাহার দায়ের করলে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।

 

এ সংক্রান্তে গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত আছে। জেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক।

 

গ্রেফতারের বিষয়ে লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুবুল আলম জানান, কে এম আব্দুল হককে মারধরের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে গ্রেফতারকৃতদের নাম জানতে চাইলে তিনি নাম প্রকাশ না করে ফোন কেটে দেন।

 

উল্লেখ্য, বুধবার ২২ মে আসন্ন লালমোহন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে পৌর শহরে মিছিল বের করে দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আক্তারুজ্জামান টিটবের সমর্থকরা। ওই মিছিলের পেছনে মিছিল শুরু করে শালিক প্রতীকের প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেনের কর্মী-সমর্থকরা। ওই মিছিলের ভিডিও ধারণ করছিলেন ডিএসবির লালমোহন জোনের এসআই কেএম আব্দুল হক। এ সময় তার ওপর হামলা চালায় শালিক প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেনের সমর্থক।

ডিএসবি কর্মকর্তার ওপর নিজের কর্মী-সমর্থকদের হামলার বিষয়ে জানতে শালিক প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেনের মুঠোফোনে কল দিলে ব্যস্ততা দেখিয়ে ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন তিনি।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Abdur Rahim

জনপ্রিয় সংবাদ

হু হু করে বাড়ছে তিস্তার পানি নদীপাড়ে আতঙ্ক বিরাজ

ভোলার লালমোহনে পুলিশকে মারধরের ঘটনায় মামলা, আটক-৩

Update Time : ০৩:২৪:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪

ভোলার লালমোহন জোনে দায়িত্ব পালন কালে ডিএসবির এসআই ( নিঃ) আব্দুল হককে বুধবার রাতে শালীক প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আখতার হোসেনের কর্মীদের হাতে আহত হওয়ার ঘটনায় লালমোহন থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং ১৬/২০২৪। ঘটনার সাথে অভিযুক্ত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) জেলা পুলিশ সুপারের এক বার্তায় এ তথ্য জানা গেছে।

 

ভোলা জেলা পুলিশ সুপারের এক বার্তা সূত্রে জানা যায়, ডিএসবি ভোলার এসআই(নিঃ)/কে এম আবদুল হক, বিপি-৮২০২০৮৫৫৩৩, লালমোহন থানা এলাকায় দায়িত্বরত থাকাকালীন ২২-০৫-২০২৪খ্রি. ১৯:৪৫ ঘটিকায় লালমোহন পৌরসভাধীন ৬নং ওয়ার্ডস্থ হাইস্কুল মার্কেটে মাইমুনা ফ্যাশন নামক দোকানের সামনে অবস্থান করে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লালমোহন উপজেলায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আক্তার হোসেন শালিক মার্কার কর্মী সমর্থকরা মিছিল করার সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন থেকে স্থিরচিত্র ধারণ করাকালীন শালিক মার্কার কর্মী সমর্থকদের মধ্য হতে ১। মোঃ সোহান(২৫), পিতা-মোঃ সোহেল স্বর্নকার, ২। মোঃ রাসেল (২৮), পিতা-মোঃ খোকন হাওলাদার, উভয় সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০৮নং ওয়ার্ড, ৩। মোঃ আরিফ (২৪), পিতা-মেদাঃ নওয়াব বকশী, সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০১নং ওয়ার্ড, ৪। মোঃ নিহাত (২০), পিতা-মোঃ নীরব,সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০৬নং ওয়ার্ড, উত্তর বাজার, ৫। মোঃ রিপন (২২), পিতা-মোঃ নুরুল হক স্বর্নকার, সাং-বালুরচর, লালমোহন পৌরসভা, ১১নং ওয়ার্ড, ৬। মোঃ জিহাদ (২২), পিতা-অজ্ঞাত, সাং-লালমোহন পৌরসভা, ০৭নং ওয়ার্ড, ৭। মেহেদী(২৫), পিতা-অজ্ঞাত, সাং-অজ্ঞাত, সর্ব থানা-লালমোহন, জেলা-ভোলাসহ অজ্ঞাতনামা আরো ১৫/২০ জনে তার সরকারী কাজে বাধা প্রদান করে এবং এলোপাতারী চর-থাপ্পর, কিল-ঘুষি মেরে নিলা ফুলা জখম করে এবং প্রকাশ্যে খুন ও জখমের হুমকী প্রদান করে। আশপাশের দোকানদার তাকে রক্ষা করে। সংবাদ পেয়ে লালমোহন থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে এসআই(নিঃ)/কে এম আবদুল হক কে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান এবং চিকিৎসা করান।  এ সংক্রান্তে এসআই(নিঃ)/কে এম আবদুল হক লালমোহন থানায় এজাহার দায়ের করলে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।

 

এ সংক্রান্তে গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত আছে। জেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক।

 

গ্রেফতারের বিষয়ে লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাবুবুল আলম জানান, কে এম আব্দুল হককে মারধরের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে গ্রেফতারকৃতদের নাম জানতে চাইলে তিনি নাম প্রকাশ না করে ফোন কেটে দেন।

 

উল্লেখ্য, বুধবার ২২ মে আসন্ন লালমোহন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে পৌর শহরে মিছিল বের করে দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আক্তারুজ্জামান টিটবের সমর্থকরা। ওই মিছিলের পেছনে মিছিল শুরু করে শালিক প্রতীকের প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেনের কর্মী-সমর্থকরা। ওই মিছিলের ভিডিও ধারণ করছিলেন ডিএসবির লালমোহন জোনের এসআই কেএম আব্দুল হক। এ সময় তার ওপর হামলা চালায় শালিক প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেনের সমর্থক।

ডিএসবি কর্মকর্তার ওপর নিজের কর্মী-সমর্থকদের হামলার বিষয়ে জানতে শালিক প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আকতার হোসেনের মুঠোফোনে কল দিলে ব্যস্ততা দেখিয়ে ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন তিনি।